ঢিলেঢালা “লকডাউন” বোয়ালখালীতে

0
278

নিজস্ব প্রতিবেদক :
করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় ৫ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে সরকার, যা সবার কাছে ইতোমধ্যেই ‘লকডাউন’ হিসাবে পরিচিতি পেয়েছে। ১১ দফা সংবলিত সেই নির্দেশনার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- গণপরিবহণ-বাস, ট্রেন, লঞ্চ, অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট বন্ধ থাকবে। সরকারি-বেসরকারি অফিস-আদালত জরুরি প্রয়োজনে সীমিত পরিসরে খোলা রাখা যাবে। শপিংমল-ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ থাকবে। নির্দিষ্ট সময় খোলা থাকবে নিত্যপণ্যের দোকান। অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া সন্ধ্যা ৬টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। খাবার দোকান খোলা থাকলেও সেখানে বসে খাওয়া যাবে না। তবে খাদ্য বিক্রি করা যাবে পার্সেল বা টেকঅ্যাওয়ে অথবা অনলাইনে ।

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে বোয়ালখালীতে দেখা গেছে, সরকারি কঠোর নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ফুলতল,গোমদন্ডী, জোটপুকুর, কানুনগোপাড়া মানুষের জটলা ছিল চোখে পড়ার মত। গণপরিবহণ না থাকলেও ব্যক্তিগত গাড়ি, সিএনজি, রিক্সা করে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মানুষকে চলাচল করতে দেখা গেছে।

এদিকে চতুর্থ দিনের মতো বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই ঔষধের ও নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান ব্যাতীত অন্যান্য দোকানপাঠ বন্ধ রয়েছে। তবে অনেক দোকানীকে প্রশাসনের চোখ ফাকি  দিয়ে দোকানের অর্ধেক দরজা খুলে রেখে পণ্য বিক্রি করতে দেখা গেছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী একান্ত প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাহিরে বের হওয়া নিষেধ থাকলেও অনেকেই বিনা কারণে বাজারসহ বিভিন্ন চায়ের দোকানগুলোতে ভিড় করছেন।

এ ব্যাপারে সহকারী কমিশনার (ভূমি) তাহমিনা আকতার চ্যানেল বোয়ালখালীকে বলেন, লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধিসহ অন্যান্য যে সকল নির্দেশনা মেনে চলতে বলা হয়েছে সেগুলো ঠিকমতো পালন করা হচ্ছে কিনা তা দেখতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। নির্ধারিত সময়ের পরেও দোকান খোলা রাখা ও বাজারে অযথা ঘোরাফেরা করা এবং স্বাস্থ্যবিধি না মানা ও মাস্ক ব্যবহার না করার অপরাধে জরিমানা করা হচ্ছে। এর পাশাপাশি সরকারি যে নির্দেশনাবলী রয়েছে সন্ধ্যা ৬টার পরে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাহিরে বের না হওয়া জন্য আমরা সবাইকে বলছি কিন্তু যদি আমরা চলে আসার পর তারা না মানলে তো আমাদের পক্ষে একজন একজন করে পাহারা দেওয়া সম্ভব না। এই বিষয়গুলো আমরা প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি যাতে সকলেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here